Wednesday, November 22, 2017

প্লাজা-পিয়াজ্জা'র দেশে; পর্ব-৪ (গ্রানাডা)



সেভিল থেকে আমাদের পরের গন্তব্য ছিল গ্রানাডা। প্রথমে ট্রেন পরে বাসে চড়ে চলে গেলাম গ্রানাডাতে। যাওয়ার পথের দৃশ্য অসাধারণ। এই পথটার দুই ধারে পাহাড়। পাহাড়ের উপত্যাকায় মানুষের বসতি। এই পথে যেতে যেতেই বোঝা যায় কেন স্পেন কে ইউরোপের সবচেয়ে বৈচিত্র পূর্ণ দেশ বলা হয়। গ্রানাডার মূল আকর্ষণ হলো আলহামরার নাসরিদ প্যালেস। গ্রানাডার মূল শহরেরই এক প্রান্তে আলহামরা অবস্থিত। এখানে আসার আগে অনলাইনে আলহামরার টিকেট করে নেয়াই ভালো। সরাসরি এসে টিকেট করতে গেলে না পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। স্পেনের যে কয়টা শহরে গেয়েছি তার মধ্যে গ্রানাডাকে পছন্দের তালিকায় এক নম্বরে রাখবো আমি। শহরে পরিমিত মানুষের চলাচল, খাবারের বৈচিত্র এখানে অনেক বেশি। আমরা ছিলাম শহরের মোটামুটি প্রাণ কেন্দ্রেই হোস্টেল ভেরোনিকাতে। আলহামরা General life এর অনলাইন টিকেট আগেই করা ছিল, বিকালে কোরাল ডেল কার্বন নামের একটা ভবন থেকে পরের দিনের আলহামরা ভ্রমণের টিকেটের হার্ড কপি নিলাম। এখানে ক্যাথেড্রাল দে গ্রানাডা এবং প্লাজা ইসাবেল লা কাটলিকে কিছু সময় কাটানো যায়। এলাকাটা ঘুরতে ঘুরতে চলে এলাম Alcaiceria নামের একটা মার্কেটে। মার্কেটে কয়েকটা দোকানির সাথে আলাপে বুঝলাম এরা বেশির ভাগই মরোক্কোর অধিবাসী। এদের দোকান গুলো খুবই রঙবেরঙের। পণ্যগুলোও বেশ চটকদার, দেখলেই কিনতে ইচ্ছা করবে। রাতে খাবার রেস্টুরেন্ট খুঁজতে গিয়েও সেই মোরোক্কানদের পাল্লাতেই পড়লাম। রেস্টুরেন্ট টার নাম রাহমা। অসাধারণ সাজসজ্জা, মনে হচ্ছিলো যেন আরব্য রাজনীর কোনো গল্পের মধ্যে আছি। স্পেনে আসার পর থেকে এখানেই প্রথম পেট ভরে খেলাম। মোরোক্কান খাবারের স্বাদ চমৎকার, ওরা আমাদের মতোই মসলা ব্যাবহার করে।

গ্রানাডাতে মরোক্কোর ব্যাবসায়ীদের এতো আধিক্য দেখে নেটে সার্চ দিলাম। গ্রানাডা প্রদেশটা ভুমধ্য সাগরের তীরবর্তী অঞ্চল, জিব্রালটার প্রণালী একে মরক্কো থেকে পৃথক করে রেখেছে। আর আলহামরা, নাসরিদ প্যালেস এগুলো মরক্কো থেকে আগত মোহাম্মদ ইবনে নাসির প্রতিষ্ঠা করেছেন। গ্রনাডাতে মুসলিম শাসনের সমাপ্তি হয় ১৪৯২ সালে। আলহামরা হলো গ্রানাডা শহরের মধ্যে আর একটা শহর। এটা পুরো ঘুরে দেখতে হলে একদিন সময় হাতে রাখতে হবে। হাতে সময় অল্প থাকলে শুধু নাসরিদ প্যালেস দেখা যেতে পারে।

গ্রানাডা পর্ব শেষ করে এবার রওনা করলাম বার্সেলোনার উদ্দেশে। ট্রেনে করে যেতে গেলে খরচ বেশি হতো তাই আকাশ পথ বেছে নিলাম। প্রথমে বাসে করে গেলাম মালাগা। এরপর মালাগা এয়ারপোর্ট থেকে বার্সেলোনা। মালাগা হলো স্পেন তথা বলা যায় ইউরোপের শেষ প্রান্ত। এরপর জিব্রালটার প্রণালী এবং মরক্কো। অবশ্য ম্যাপে মরোক্কোর সামান্য কিছু অংশ ইউরোপের মধ্যে দেখানো হয়েছে কিন্তু ভৌগোলিক ভাবে আফ্রিকাকে ইউরোপ থেকে বিভক্ত করেছে এই জিব্রালটার প্রণালী আর ভুমধ্য সাগর। জিব্রালটার প্রণালীটা হলো অতলান্তিক মহাসাগরের সাথে ভুমধ্য সাগরের সংযোগ স্থল।

Plaza De Isabel La Catolica

Light Shop at Alcaiceria Market, Granada







Fruits and Spices at Alcaiceria Market



Moroccan Restaurant

Nasrid Palace, Alhambra

Alhambra

Nasrid Palace, Alhambra

Granada City from Nasrid Palace

Granada City

On the way to Malaga Airport

                                                                                                          [চলবে]... ..

Related Post





Translate